সংবাদ শিরোনাম:

বৈবাহিক ধর্ষণ নিয়ে যে কারণে ‘মিটু’ আন্দোলন হয় না

ডেস্ক রিপোর্ট : ২০১৮ সালের একটি জাতীয় পারিবারিক স্বাস্থ্য সমীক্ষার ফলাফলে উঠে এসেছে, ভারতে ৮০ শতাংশেরও বেশি বিবাহিত নারী তাদের স্বামীর হাতে যৌন নির্যাতনের শিকার।

বৈবাহিক ধর্ষণ সম্পর্কে সে দেশের মানুষ কতটা সচেতন, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলার সময় পেরিয়ে গেছে। কারণ চতুর্থ জাতীয় পারিবারিক স্বাস্থ্য সমীক্ষা অনুযায়ী, সারা ভারতে গবেষণার নমুনায় স্থান পাওয়া একশ জন পুরুষের মধ্যে ৯ জনই মনে করেন, স্ত্রীর অনিচ্ছা সত্ত্বেও তার শারীরিক সম্ভোগ একজন স্বামীর অধিকার।

বিষয়টি নীরবে সমর্থন করে ভারতীয় সংবিধান। ভারতীয় পেনাল কোডের আর্টিকেল ২০ অনুযায়ী, স্ত্রীর সঙ্গে যৌন সঙ্গম যদি তার অনুমতির বিরুদ্ধেও হয়, তবে তা ধর্ষণ নয়।

আবার আর্টিকেল ২১-এ গিয়ে বলা হয়েছে স্বামী যদি যৌন হেনস্থা করেন তবে স্ত্রী তার সঙ্গে থাকতে বাধ্য নন। তবুও সে দেশে বৈবাহিক ধর্ষণ কোনো ‘ক্রাইম’ নয়। আইনের চোখে এটি বিবাহবিচ্ছেদের একটি কারণ হতে পারে, কিন্তু স্ত্রীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে তার সঙ্গে যৌন সংসর্গ স্থাপন করলে কোনো স্বামীকে ‘ক্রিমিনাল’ বলবে না দেশটির বিচারব্যবস্থা।

ভারত হলো পৃথিবীর ৩৬টি দেশের অন্যতম, যেখানে বৈবাহিক ধর্ষণ কোনো ক্রিমিনাল অফেন্স নয়। অথচ জাতিসংঘের পক্ষ থেকে ভারত সরকারকে বহুবার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে, যাতে দেশটির বিবাহিত পুরুষের অভ্যাসটিকে ক্রিমিনাল অফেন্স হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

কিন্তু বার বার সে দেশের আইনব্যবস্থা বাধ সেধেছে। গত বছর একটি বিশেষ মামলায় দিল্লি হাইকোর্ট রায় দেয় যে, বৈবাহিক ধর্ষণকে অপরাধ হিসেবে স্বীকৃতি দিলে দেশে বিবাহ নামক প্রতিষ্ঠানটি ভেঙে পড়বে।

প্রতিবেশী দেশ নেপাল ও ভূটানে কিন্তু এটি অপরাধ হিসেবে স্বীকৃত। ব্রিটেন, যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি রাজ্য ও প্রথম বিশ্বের দেশগুলো ছাড়াও আফ্রিকা ও লাতিন আমেরিকার তৃতীয়/চতুর্থ বিশ্বের দেশগুলোতেও বৈবাহিক ধর্ষণ ক্রিমিনাল অফেন্স।

যদিও সংযুক্ত আরব আমিরাত, ইয়েমেন, সিরিয়া, শ্রীলঙ্কা, সৌদি আরব, ফিলিস্তিন, ওমান, নাইজেরিয়া ও ভারতের মতো দেশ, যেখানে স্ত্রীর শরীর স্বামীর যৌন বাসনা চরিতার্থ করার একটি ‘টুল’ মাত্র।

যে দেশগুলিতে ম্যারাইটাল রেপ-কে অপরাধ বলে গণ্য করা হয়, সেখানে কিন্তু এই আইনি সংশোধন এসেছে সে দেশের নারীদের গণপ্রতিবাদের মধ্য দিয়েই। সে কারণে বৈবাহিক ধর্ষণ নিয়ে হয় না কোনো ‘মিটু’ আন্দোলন।

Comments

comments

নিউজটি 106 বার পড়া হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

প্রকাশক : আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক : শেখ আঃ সালাম
নির্বাহী সম্পাদক : জি এম হেদায়েত আলী টুকু
যুগ্ন-সম্পাদক : মুন্সী রেজাউল করিম মহব্বত
উপদেষ্টা : জি এম ইমদাদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
অফিস : ফকিরবাড়ীর মোড়,কপিলমুনি বাজার,পাইকগাছা,খুলনা।
মোবাইলঃ ০১৭১৬১৮৪৪১১,০১৭১৩৬৩৪০৫৩

E-mail: dainikkapotakho@gmail.com